Menu
Blogger | No Comments | 2 months ago
প্রথম ভ্যাকসিন নেয়া সেই নারী সুস্থ : ভারতে মে থেকে টিকা উৎপাদন শুরু
HomeBlogger Trick FOX / 2 months ago

যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আবিষ্কৃত একটি পরীক্ষা করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ‘যুগান্তকারী মূহুর্ত’ বলে দাবি করা হচ্ছে। এর ফলে যাদের শরীরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সক্ষমতা আছে তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবেন। এদিকে, মৃত্যুর গুজব উড়িয়ে সুস্থ আছেন বলে জানালেন ইউরোপে প্রথম ভ্যাকসিন গ্রহণ করা সেই নারী। আগামী মে মাস থেকে ভারতও এই ভ্যাকসিন তৈরি শুরু করবে।

নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন মানবদেহে পরীক্ষা শুরু করে শিরোনামে চলে এসেছিলেন যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। এবার তারা মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সক্ষমতা নির্ণয় কার সম্ভব এমন একটি পরীক্ষা পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছে। যুক্তরাজ্য সরকার অনুমোদিত একটি ‘ম্যাস র‌্যাপিড টেস্টিং কনসোর্টিয়াম’ এর অংশ হিসাবে এই পরীক্ষা করবেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। তারা এটাকে ইমিউনিটি টেস্টের ক্ষেত্রে এক যুগান্তকারী মূহুর্ত বলে দাবি করেছেন। কনসোর্টিয়ামের বিজ্ঞানীরা বলেছেন যে, জুনের মধ্যে ১০ লাখ পিনপ্রিক টেস্ট কিট পাওয়া যাবে, যার প্রতিটির জন্য ১০ পাউন্ড ব্যয় হবে এবং ২০২১ সালের মধ্যে ৫ কোটি মানুষের ইমিউনিটি পরীক্ষা করা হতে পারে।

রক্তের একটি ছোট্ট নমুনা নিয়ে এই পরীক্ষা করা হবে। মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া যাবে। পরীক্ষাগুলোতে সংক্রামিত রোগীদের রক্ত বিশ্লেষণ করে ফলাফল তৈরি করা হবে। এমনকি যাদের মাঝে কোন লক্ষণ নেই তাদেরও এই পরীক্ষায় করোনা সনাক্ত হবে। টেস্টিং কনসোর্টিয়ামের প্রধান জোনাথন অ্যালিস রোববার বলেছেন, ‘মানুষের যেসব ক্ষেত্রে অ্যান্টিবডি রয়েছে সেগুলোর শতভাগ আমরা বাছাইয়ের কাছাকাছি। এখন এটির উৎপাদন প্রক্রিয়া কিভাবে বাড়ানো যায় সেটাই প্রশ্ন।’ একটি সরকারী সূত্র বলছিল, এটি গেম চেঞ্জার হতে পারে – ভাইরাসকে আরো জোরালোভাবে ফিরে আসা প্রতিরোধ করতে এটা একটি যুগান্তকারী মুহূর্ত।

এদিকে, ইউরোপে যিনি প্রথম অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছিলেন সেই নারী ডাক্তার ভাল আছেন বলে নিজেই জানিয়েছেন। সম্প্রতি গুজব উঠেছিল যে তিনি মারা গিয়েছেন। সেই গুজব উড়িয়ে দিয়ে ডক্টর এলিসা গ্রানাটো নিজেই তার সুস্থতার খবর জানালেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিবিসির স্বাস্থ্য বিষয়ক সংবাদদাতা ফারগাস ওয়ালশ। তিনি বলেন, ‘এলিসা গ্রানাটো ভালো আছেন, সুস্থ আছেন।’ গ্রানাটোর সাথে রোববার সকালে স্কাইপেতে তার কয়েক মিনিট কথাও হয়। গ্রানাটো জানান, তিনি তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অনলাইন গ্রæপচ্যাট করেছেন, এবং তাদের আশ্বস্ত করেছেন যে কোথাও তার মৃত্যুর খবর দেখলে তারা যেন ঘাবড়ে না যান। প্রসঙ্গত, শনিবার একটি ওয়েবসাইট থেকে তার মৃত্যুর গুজব ছড়ায়।

যুক্তরাজ্যে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের পরীক্ষা অনেকখানি এগিয়েছে। তাতে পুরো সাফল্য আসার আগেই ভারতে ভ্যাকসিন তৈরির প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেলো। কারণ, আর অপেক্ষা করতে রাজি নয় পুনের সেরাম ইনস্টিটিউট। তারা এখন থেকেই করোনার টিকা তৈরির প্রস্তুতি সেরে ফেলছেন। যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডে করোনার টিকা এখন মানুষের শরীরে পরীক্ষা করা হচ্ছে। গত ২৩ এপ্রিল তার প্রথম পরীক্ষা হয়েছে। তারপরই মহারাষ্ট্রের পুনেতে সেরাম ইনস্টিটিউট ঠিক করেছে, তারা এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষা সফল হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবে না। তার আগেই প্রস্তুতি সেরে ফেলবে। অক্সফোর্ডের যে কনসোর্টিয়াম ভ্যাকসিন বানাচ্ছে, তাদের সাথে বিশ্বের যে সাতটি প্রতিষ্ঠান যুক্ত হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট। অক্সফোর্ডের গবেষকদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছেন পুনের এই সংস্থার বিজ্ঞানীরাও। এই প্রসঙ্গে সেরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়ালা বলেন, ‘অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ ডক্টর হিলের সঙ্গে আমাদের দল কাজ শুরু করেছে।

আগামী ২ থেকে ৩ সপ্তাহের মধ্যে ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু করা সম্ভব হবে বলে আমাদের প্রত্যাশা। এর পরে প্রাথমিকভাবে প্রথম ছ-মাসের মধ্যে আমরা ৫০ লাখ ডোজ উৎপাদন করতে পারব। এর পরে বাড়িয়ে মাসে ১ কোটি ডোজ করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন করার সক্ষমতা আমরা অর্জন করব বলে আশা।’ কত উৎপাদন হবে এবং ভ্যাকসিনের দাম কত হবে সেটাও আগাম জানিয়েছেন পুনাওয়ালা। তিনি বলেছেন, ‘ভারতে ভ্যাকসিনের দাম হবে এক হাজার টাকা। এর মধ্যে আমাদের খরচও ধরা আছে। লোকে যাতে ভ্যাকসিন কিনতে পারেন, সেটাও মাথায় রাখা হয়েছে। তবে বিদেশে দাম বেশি হতে পারে। এমএমআর ভ্যাকসিন ভারতে যে দামে পাওয়া যায়, তার তুলনায় যুক্তরাজ্যে দাম দশগুণ বেশি।’ পুনের কারখানাতেই ভ্যাকসিন তৈরি হবে। সে জন্য অন্য সব ভ্যাকসিনের উৎপাদন থামিয়ে করোনার ভ্যাকসিনই তৈরি হবে। তার জন্য ১৫ কোটি ডলার বিনিয়োগও করছেন তারা। সূত্র : টিওআই, ইভনিং স্টান্ডার্ড।



Leave a Comment